আমাদের কথা

জয় হোক জয় নিউজের

সময়টা অনলাইনের। সারা দুনিয়াই এখন অনলাইনের পরিধিতে। এই পরিধি প্রতিনিয়ত বিস্তৃত হচ্ছে। সেই পরিধি বৃদ্ধির অংশ হিসেবে ‘সদ্য সংবাদ সত্য সংবাদ’ এ শ্লোগানে বাংলাদেশের বুকে আরো একটি অনলাইন সংবাদ প্রতিষ্ঠানের যাত্রা শুরু হলো। অনলাইন সাংবাদিকতায় কেবল তথ্য-ই পরিবেশিত হয় না, পাঠকের সঙ্গে সংবাদমাধ্যম নিয়মিত মিথষ্ক্রিয়ায় লিপ্ত হওয়ার সুযোগ থাকে অনলাইনে। বাংলাদেশ তথ্য প্রযুক্তির ছোঁয়ায় দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলছে। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে পৌঁছে গেছে প্রযুক্তি। এর ফলে মানুষের যোগাযোগটা অনেক সহজ ও দ্রুত হয়েছে।
আমরা জানি, সব সংবাদপত্র শক্তি আহরণ করে তার পাঠকের কাছ থেকে। পাঠকের কাছ থেকে আমরা আশা করি প্রেরণা। কারণ, তাঁরাই সংবাদমাধ্যমের চালিকাশক্তি।
বাংলাদেশের প্রায় সব শ্রেণির মানুষ সংবাদপত্র পড়েন। এদিকে অনলাইন পরিসরের বৃদ্ধি তথা ডিজিটাল বাংলাদেশের প্রসারের কারণে অনলাইন সাংবাদিকতারও বিকাশ হচ্ছে। আমাদের পাঠককুল ও সম্ভাব্য অসংখ্য বিজ্ঞাপনদাতারা আমাদের কাছে যুগপৎ স্বর্ণখনি। এই দেশের শ্রেষ্ঠ বিপণন উদ্যোক্তা বা বিজ্ঞাপনদাতারা নিশ্চয় জানেন, দেশজুড়ে তাদের সামগ্রী ও পরিসেবা বিপণন করতে গেলে অনলাইন প্রসারের বিকল্প নেই।
পক্ষপাতহীন মতামত, গঠনমূলক সমালোচনা, অদম্য সাহস ও আপসহীন মনোভাবের জন্য এই অঞ্চলের সাংবাদিকতার পেশাগত গৌরব সুবিদিত। তাঁরা আজ আমাদের পথচলায় অনুকরণীয়। মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার পথে আমরা একদল শ্রেষ্ঠ মানুষ পেয়েছি যাদের উদারতা ও বিনিয়োগে আমরা আপনাদের সামনে হাজির হতে পেরেছি।অনলাইন গণমাধ্যমের সাথে রয়েছে জয়টিভিও। যেখানে বাংলা ও বাঙালির ইতিহাস ঐতিহ্য আমরা তুলে ধরবো।
ইতোমধ্যে অত্যাধুনিক ভিডিও ক্যামেরা, ল্যাপটপ, ভিডিও এডিটিং প্যানেলসহ আমাদের চৌকস সংবাদ বাহিনী নানা স্বাদের প্রতিবেদন দিতে প্রস্তুত।
বিষয়-বৈচিত্র্যে এই সংবাদমাধ্যম দিন দিন সমৃদ্ধ হবে, এই আশা আমাদের। দৃশ্য-শ্রাব্য-কথ্য-লেখ্য চার মাধ্যমে লেখক-পাঠক মিথস্ক্রিয়া হবে এই অন্তর্জালে। জয় হোক জয় নিউজের।